1. newsshariful@gmail.com : Md shariful islam : Md shariful islam
  2. torikhossainbappy@gmail.com : Torik Hossain Bappy : Torik Hossain Bappy
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৫:৫৬ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ:
মাকসুদকে মেনে নিবে না বন্দরের মুক্তিযোদ্ধরা সিদ্ধিরগঞ্জে যুবলীগ অফিসে টেনশন গ্রুপের হামলা, নারী নেত্রীকে শ্লীলতাহানী প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে মহানগর আ’লীগ বর্ণীল আয়োজন আওয়ামীলীগের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে খান মাসুদের নেতৃত্বে মিছিল নিয়ে যোগদান রাসেল ভাইপারসহ ডেঙ্গু মশার আবাসস্থল ধ্বংস কার্যক্রম উদ্বোধন করে দেশবাংলা সংগঠন রূপগঞ্জে মেয়র প্রার্থী রফিক ও তার ভাই শফিক হিন্দু ভোটারদের হুমকি দিচ্ছে -বাদশা আবাসিক হোটেল থেকে ২০ নারী-পুরুষ আটক হাজীগঞ্জে জলাবদ্ধ ভাঙা রাস্তা পরিদর্শন করলেন চেয়ারম্যান ফাইজুল ইসলাম কবি কাজী নজরুল ইসলাম সম্মাননা অ্যাওয়ার্ডে ভূষিত হলেন হাজী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম সোনারগাঁয়ে হৃদয় ভূঁইয়া হত্যা মামলায় ১৫ আসামী কারাগারে

নতুন শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে বির্তক উস্কে দিলেন হেফাজতে ইসলাম

স্টাফ রিপোর্টার
  • সংবাদ প্রকাশের সময়ঃ রবিবার, ২ জুন, ২০২৪
  • ২১ জন্য পাঠক দেখেছে।

স্টাফ রিপোর্টার : বাংলাদেশের মত একটি ইসলামী রাষ্ট্রে আগামী প্রজন্মের ইমান নষ্ট করতে পাঠ্যপুস্তকে হিন্দুত্ববাদ ও নাস্তিক্যবাদ ডুকিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দরা। এতে করে নতুন শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে নতুন করে বির্তক উস্কে দিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার নেতৃবৃন্দরা।

 

রোববার ২জুন বিকেলে শহরের চাষাঢ়া এলাকায় অবস্থিত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে হেফাজতে ইসলামের উদ্যোগে বর্তমান জাতীয় শিক্ষা কারিকুলাম এবং নতুন পাঠ্যপুস্তকের বাস্তবতা ও ভবিষ্যত শীর্ষক আলোচনা সভায় এমন মন্তব্য করেছেন বক্তবারা।

তবে তাদের এমন মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় হিন্দু নেতৃবৃন্দ মনে করছেন বর্তমান পাঠ্য পুস্তকে হিন্দুত্ববাদ ডুকানো হয়েছে কিনা বিষয়টি আরো পরিস্কারভাবে জানতে। এছাড়াও পাঠ্যপুস্তকে যদি কোন ধর্মীয় অনুভুতিকে আঘাত করা হয়ে থাকে তবে সেটা অবশ্যই পরিবর্তন করা প্রয়োজন।

 

এদিকে সুশিল সমাজের প্রতিনিধিদের দাবী নতুন কারিকুলামে ধর্মীয় সেন্টিমেন্ট নিয়ে তেমন কিছুই বলা হয়নি। নতুন কারিকুলাম বিশ্বের উন্নত দেশ গুলোকে অনুসরন করা হয়েছে। এই প্রক্রিয়াটি কতটুকু ফলপ্রসূ হবে তার জন্য আমাদের চার থেকে পাঁচ বছর অপেক্ষা করতে হবে।

রোববার হেফাজতে ইসলামের সমাবেশে বক্তারা বলেছেন, মুসলাম সব শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড হতে পারেনা। সুশিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। আপনারা আজকে প্রাইমারী থেকে যে পাঠ্যপুস্তক শুরু করেছেন এটা মুসলমানের দেশে করতে দেওয়া হবেনা। আমরা দাবী করবো এই দেশে মধ্যে যেন ইসলামী আইন অনুযায়ী পাঠ্যপুস্তক গুলো শুরু হয়।

 

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, যতই তুমি সেজদা করো, যতই তুমি তাহাজ্জত পড়ো মনে রাখবা শয়তান এমন কোন জায়গা নাই যেখানে সেজদা করে নাই। তুমি মুসলমানের পরিচয় দিয়া এদেশের মুসলমানের সন্তানদেরকে নাস্তিক আর মুরদাদ বানাবা এদেশে তৌহিদী জনতা মানবে না।

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি দেলোয়ার আল হোসাইনি বলেন, আমাদের আগামীর প্রজন্মের ইমানকে নষ্ট করার জন্য বর্তমান শিক্ষা সিলেবাসে হিন্দুত্ববাদী ও নাস্তিক্যবাদীকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। আমাদের ইসলামকে ধ্বংস করার জন্য ধূলিসাৎ করার জন্য জটিল থেকে জটিলতর ষড়যন্ত্রের বাস্তবায়ন চলছে।

 

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি শংকর কুমার দে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জানান, পাঠ্য পুস্তকে কোন হিন্দুত্ববাদ বা মুসলিমবাদ বলে কিছু থাকা উচিত নয়। হিন্দু ধর্ম বইতে হিন্দুধর্ম থাকবে, ইসলাম শিক্ষা বইতে ইসলাম ধর্মের বিষয় থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তবে পাঠ্য পুস্তকের কোথাও যদি ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত লাগার মত কিছু থেকে থাকে সেটা যে ধর্মেরই হোক আমি ব্যক্তিগত ভাবে চাইবো সেটা যেন পরিবর্তন করা হয়।

 

আরেকজন হিন্দু বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ নারায়ণগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদক শিপন সরকার শিখন প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বলেন, তারা কোথায় কোন বিষয়টি নিয়ে বলছে আমরা সেটা আগে দেখি। তারা যে অভিযোগ তুলেছে সেটি এখনো আমাদের নলেজে আসেনি। দ্বিতীয় কথা হলো দেশে হিন্দুত্ব ও মুসলিমত্ব বলে কিছু নেই। এখানে বাঙ্গালিত্ব বিষয়। একটা স্বাধীন দেশ, ৫৩বছর পূর্বে একটি রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে এই দেশ স্বাধীন হয়েছে। সেখানে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ খিস্ট্রান এক জাতি এক প্রান এই হিসেবেই মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে, এর বিনিময়ে বাংলাদেশ। সেই বাংলাদেশে সমস্ত ধর্মাবলম্বীরা সুখে শান্তিতে থাকবে এটাই স্বাধীনতার মূল বক্তব্য। জানিনা কোথায় কে কি বলছে। আমরা আরো ভাল করে বিষয়টা জানি এর আমাদের প্রতিক্রিয়া জানাবো।

 

নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক খবরের পাতার সম্পাদক মাহবুবুর রহমান মাসুমের কাছে এ ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন বর্তমান পাঠ্য পুস্তকের ব্যাপারে আমার কোন স্টাডি নেই। তাই আমি এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য করতে পারবো না।

 

এ ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুলের গর্ভানিং বডির দাতা সদস্য আব্দুস সালামের কাছে প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, যে কারিকুলামটা সরকার তৈরি করেছে, সেটি বর্তমান বিশ্বের সাথে উন্নত দেশ গুলোর সাথে সামঞ্জস্য রেখে কারিকুলামটি তৈরি করা হয়েছে। স্বাধীনতার পর থেকে এখন পর্যন্ত শিক্ষানীতি কারিকুলাম পরিবর্তিত হয়েছে ১০বার। এই কারিকুলামটি ভাল নাকি মন্দ এর জন্য আমাদের অত্যন্ত পাঁচ বছর দেখতে হবে, কারিকুলামটি কতটুকু ফলপ্রসূ। একটা পর্যায় যদি শেষনা হয় তাহলে এটা নিয়ে কথা বলা যাবেনা এটা খারাপ নাকি ভাল। আমি যতটুকু জানি এই কারিকুলামে ধর্মীয় সেন্টিমেন্ট নিয়ে তেমন কোন কথা বলা হয়নি। কারিকুলামটি জানুয়ারিতে শুরু হয়েছে। এখন জুন মাসে এসে যদি ধর্মীয় সেন্টিমেন্টে আঘাত হেনে থাকে তাহলে এটা এভাবে পাবলিকলি আলোচনা করার থেকে সরকারের উচ্চ পর্যায় বসে আলোচনা করা দরকার এবং সুনিদিষ্টভাবে বলা দরকার কোথায় কোন জিনিসটা ধর্মকে আঘাত করা হয়েছে। এটার পক্ষপাতি আমি না। আগে কারিকুলাম দেখা উচিত তারপর এটা নিয়ে কথা বলা উচিত।

অনুগ্রহ করে আপনাদের ব্যক্তিগত সোশ্যাল মিডিয়া গুলিতে প্রকাশিত এই প্রতিবেদন টি শেয়ার করে আমাদের সাথেই থাকুন ধন্যবাদ।

এ জাতীয় আরও সংবাদ ক্যাটাগরি
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৭
  • ১২:০৪
  • ৪:৪১
  • ৬:৫৩
  • ৮:২০
  • ৫:১২