বিজিবি’র টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অভিযানে ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ

লেখক: নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশ: ৮ মাস আগে

বর্তমান সরকারের মাদকের বিরুদ্ধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি যথাযথ বাস্তবায়নকল্পে মাঠ পর্যায়ে বিজিবি’র গোয়েন্দা তৎপরতা ও অভিযানিক কর্মকাণ্ড অব্যাহত রয়েছে।

এরই ধারাবাহিকতায় কক্সবাজারে টেকনাফে বিজিবি’র অভিযানে ১,৫০,০০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়েছে।

গতকাল ১৪ জুলাই ২০২৩ তারিখ রাতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, বিজিবি’র টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ নাজিরপাড়া বিওপি’র দায়িত্বপূর্ণ আলুগোলা নামক এলাকা দিয়ে মাদকের একটি চালান মায়ানমার হতে বাংলাদেশে পাচার হতে পারে।

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে ব্যাটালিয়ন অধিনায়কের সার্বিক দিকনির্দেশনায় ভারপ্রাপ্ত অপারেশন অফিসারের নেতৃত্বে ব্যাটালিয়ন সদর এবং নাজিরপাড়া বিওপি হতে দুইটি চোরাচালান প্রতিরোধ টহলদল বর্ণিত এলাকায় গমন করতঃ কয়েকটি উপদলে বিভক্ত হয়ে আলুগোলা (ভাংগা) মাছের প্রজেক্টের আইলের আঁড় নিয়ে কৌশলগত অবস্থান গ্রহণ করে। আনুমানিক রাত ২৩১০ ঘটিকায় টহলদল তিনজন ব্যক্তিকে তিনটি কালো পলিথিনের ব্যাগ হাতে নিয়ে বেড়ীবাঁধ অতিক্রম করে সীমান্তের শূন্য লাইন হতে আনুমানিক ০১ কিঃ মিঃ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বর্ণিত স্থানের দিকে আসতে দেখে। তাদের গতিবিধি সন্দেহজনক পরিলক্ষিত হওয়ায় টহলদল তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করলে উক্ত ব্যক্তিরা দূর হতে বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি অনুধাবন করা মাত্রই তাদের হাতে থাকা তিনটি পলিথিনের ব্যাগ ফেলে দিয়ে দ্রুত দৌড়ে নাফ নদীর পার্শ্বে কেওড়া বাগানের ভিতরে পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে টহলদল উল্লেখিত স্থানে পৌঁছে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে ফেলে যাওয়া তিনটি পলিথিনের ব্যাগ উদ্ধার করে তার ভেতর থেকে ১,৫০,০০০ (এক লক্ষ পঞ্চাশ হাজার) পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করে ।পরবর্তীতে টহলদল কর্তৃক উক্ত এলাকায় ১৫ জুলাই ২০২৩ তারিখ রাত ০০১০ ঘটিকা পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করা হলেও কোন চোরাকারবারী কিংবা তাদের সহযোগীকে আটক করা সম্ভব হয়নি। চোরাকারবারীদেরকে সনাক্ত করার জন্য অত্র ব্যাটালিয়নের গোয়েন্দা কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

  • বিজিবি'র টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অভিযানে ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ