বন্দরে কিশোর গ্যাংয়ের প্রান্ত বাহিনীর হামলায় আহত শারীরিক প্রতিবন্ধী সায়মন

লেখক: আমাদের সংগ্রাম ডেস্ক
প্রকাশ: ২ years ago
আহত সায়মন

চুরির ঘটনায় স্বাক্ষী হওয়ায় শারীরিক প্রতিবন্ধী সায়মনকে(১৪) দাড়ালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করেছে।
নাসিক ২৪ নং ওর্য়াডস্থ বন্দরের নবীগঞ্জ বাজার এলাকায় ঘটেছে। অটোরিকশা ও সিএনজি গ্যারেজ থেকে ব্যাটারী ও চার্জার চুরির  ঘটনায় গত ৪ জুন শনিবার রাতে  কিশোর গ্যাং ও চোরের  লিডার প্রান্ত এ ঘটনা ঘটায়। এ বিষয়ে রাতেই বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।
হামলাকারী প্রান্তের দারালো অস্ত্রের আঘাতে সায়মন  পেটের বাম পাশ ও বাম হাতের কেটে যায়।
আহত সায়মন কে প্রথমে বন্দর  উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায় পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
 নবীগঞ্জ ইসলাম বাগ ( অলম্পিয়া) কাশেমের ছেলে আহত   সায়মন  (১৪) জানায়, আমি বাসায় যাওয়ার পথে নবীগঞ্জ বাজার এলাকায় পৌঁছলে কিশোর গ্যাং এ-র লিডার মাদক বিক্রয়কারী সন্ত্রাসী প্রান্ত(২৪) আমার পথ গতিরোধ করে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসী প্রান্ত(২৪) অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সায়মন (১৪) কে বলে উজ্জ্বল তোর মামা তোর মামা কে তো কিছু বলতে পারবি না, তোরে আজকে জানে মেরে ফেলবো এ-ই কথা বলে ধারালো ছুরি দিয়ে  পেটের বাম পাশ প্রথমে আঘাত করে গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়ে মাটিতে ফেলে দেয় পরে ২ নং আসামি বলে মেরে ফেল একবারে এ-ই কথা শুনিয়া ১নং আসামি আবার ছুরি দিয়ে পোচ মারিলে বাম হাত ঠেকাইতে গেলে বাম হাতে পোচ পড়িয়া কাটা গুরুতর রক্তাক্ত জখম হয়।
এ সময় তার ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন আসিতে থাকলে আসামি গন বলে এই বিষয় নিয়ে কোন মামলা মোকদ্দমা করলে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও প্রান নাশের হুমকি দিয়া চলে যায়।
এ ব্যাপারে মোঃ উজ্জ্বল হোসেন বাদী হয়ে ইসলাম বাগ এলাকার ১।  প্রান্ত (২৪), পিতা-কেটু মিয়া,মাতা-হাফিজা বেগম, ২। কেটু মিয়া (৫৫),৩। হাফিজা বেগম  (৪২), স্বামী- কেটু মিয়া, আসামী করে বন্দর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন।
  • বন্দরে কিশোর গ্যাংয়ের প্রান্ত বাহিনীর হামলায় আহত শারীরিক প্রতিবন্ধী সায়মন