অয়ন ওসমানের বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ, ছাত্রলীগ নেতা হৃদয়ের নিন্দা ও প্রতিবাদ

লেখক: নিজস্ব প্রতিনিধি
প্রকাশ: ৯ মাস আগে

সম্প্রতি একটি মামলায় হয়রানীর শিকার নারায়ণগঞ্জের হাজীগঞ্জের একটি মুক্তিযোদ্ধা পরিবার এবং নির্যাতনের শিকার মহিলার পাশে দাড়ানোকে কেন্দ্র করে পুলিশ সুপারের নিকট অয়ন ওসমানের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে দেয়া এক সাংবাদে শম্ভুপুরা ইউনিয়নের ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান হৃদয় উল্লেখ করেন, ‘সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জের হাজীগঞ্জে মিথ্যা মামলায় হয়রানীর শিকার একটি মুক্তিযোদ্ধা পরিবার এবং নির্যাতনের শিকার মহিলার পাশে দাড়ানোকে কেন্দ্র করে পুলিশ সুপারের নিকট মানবিক ও সমাজ সেবক ব্যক্তিত্ব অয়ন ওসমানের বিরুদ্ধে একটি কুচক্রি মহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অভিযোগ করেছেন। আমি এ অভিযোগের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

গত ১৮ জুন অয়ন ওসমানের ব্যবসায়ীক কার্যালয়ে মৃত আজাদ বক্সের ছেলে আবু সাইদ মোল্লা, মেয়ে মাবিয়া সিদ্দিকা, নাতি (আয়েশা সিদ্দিকার ছেলে) মাসুদ এবং আব্দুস সবুর মোল্লা উপস্থিত ছিলেন। সবুর মোল্লার দায়েরকৃত অভিযোগে আবু সাইদ মোল্লা, মেয়ে মাবিয়া সিদ্দিকা, নাতি (আয়েশা সিদ্দিকার ছেলে) মাসুদ সেখানে আগে থেকেই উপস্থিত থাকার কথা বলা হলেও অফিসের সিসি টিভি ফুটেজ পর্যালোচনায় দেখা গেছে সবুর মোল্লাই সেখানে আগে উপস্থিত ছিলেন। পাশাপাশি আয়েশা সিদ্দিকার উপস্থিতির কথা বললেও সেখানে ওই নামে কেউই ছিলেন না। সেখানে অয়ন ওসমান সম্পত্তি নিয়ে আদালতে মামলা থাকার বিষয়টি জেনে তাদের স্থানীয়ভাবে গণমান্য ব্যক্তিদের মাধ্যমে নিজেদের মধ্যে বিষয়টি সমাধান করার কথা বলেন। ওই সময় সেখানে কোন শাসানোর ঘটনাতো ঘটেইনি, উল্টো সবুর মোল্লাকে দেখা গেছে আপ্যায়িত হয়ে সাবলীলভাবে কথা বলছেন এবং তিনি অয়ন ওসমানের পাশে দাড়িয়েই সেখানে নামাজ আদায় করেন।

ঘটনার খোঁজ নিতে গত ২০ জুন দুপুরে সরেজমিনে গেলে মৃত আজাদ বক্সের ছেলে আবু সাইদ মোল্লা জানান, তাদের বাবা মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাদ বক্স মোল্লা হেবামূলে ৪৬.৫ শতাংশ জমি তাকেসহ অপর ২ভাই বোনকে প্রদান করেন। এই সম্পত্তি গ্রাস করতেই তাদের অপর ২ ভাই সবুর মেল্লা ও সায়েম মোল্লা হয়রানি করার জন্য একে একে ৪টি মিথ্যা মামলা করেন। সবুর ও সায়েম মোল্লা গংদের অত্যাচারে ২০২১ সালে সুফিয়া সিদ্দিকা নামে তাদেরই অবিবাহিত বোনের মৃত্যু হয়। এক পর্যায়ে তাদের অত্যাচার সইতে না পেরে জমির প্রকৃত মালিকরা সবুর ও সায়েমকে মৃত সুফিয়ার ১৫ শতাংশের জমিটি লিখে দিতে চাইলেও তারা তাতে রাজি হয়নি। কিছুদিন আগে তারা আবু সাইদ মোল্লা ও অপর বোন মাবিয়া সিদ্দিকার উপরও হামলা করে এবং সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাদের মালিকানাধীন বাড়ীর ভাড়া নিয়ে যায় এবং একের পর এক মামলা ও হামলার শিকার হলে এবং এই বিষয়ে কোন প্রতিকার না পেয়ে আবু সাইদ মোল্লা স্থানীয় সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের দারস্থ হতে চান। কিন্তু তিনি রাষ্ট্রীয় সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে সুইজারল্যান্ডে অবস্থান করায় তার ছেলে অয়ন ওসমানের কাছে যান। প্রথমে অয়ন ওসমান বিষয়টি নিয়ে বসতে না চাইলেও পরবর্তীতে খোঁজ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার ও একটি মহিলাকে নির্যাতনের বিষয়টি জানতে পেরে মানবিক স্বার্থে চলমান বিরোধ নিস্পত্তিতে সবাইকে আসতে বলেন।

এ বিষয়ে আজাদ বক্স মোল্লার আরেক সন্তান মাবিয়া সিদ্দিকা জানান, কিছু দিন আগে সবুর ও সামাদ মোল্লা আমার ভবনের দুই ভাড়াটিয়া থেকে জোরপূর্বক ভাড়া আদায় করে নিয়ে আসেন। আমি এই বিষয়ে প্রতিবাদ করায় তারা আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর করেন এবং আরো জানান যে, অয়ন ওসমানের সাথে আমরা প্রথমে দেখা করতে পারিনি। তিনি জমিজমার সমস্যা শুনে বলেছিলেন তিনি এসব বিষয়ে কথা বলেন না। কিন্তু আমার বাবা একজন মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন এবং বাড়ীর নারীদের উপর মারধরের বিষয়টি বলাতেই তিনি আমার মুক্তিযোদ্ধা বাবার সম্মানের দিকে তাকিয়ে আমাদের বসার অনুমতি দিয়েছিলেন। তার আচরণ ব্যবহারে প্রত্যেকেই মুগ্ধ হই। আমার ভাই সবুর মোল্লা তার সাথে নামাজ আদায় করেন এবং তার সাথে আলোচনা শেষে বিরোধ নিস্পত্তি করে নিবেন বলে প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন। কিন্তু তার পরের দিনই মামলাবাজ সবুর মোল্লা ও তার অপর ভাই সায়েম মোল্লা নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের বরাবরে মানবিক ও সমাজ সেবক ব্যক্তিত্ব অয়ন ওসমানকে জড়িয়ে একটি মিথ্যা অভিযোগ পত্র জমা দেন যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’।

এই বিষয় ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান হৃদয় আরো বলেন , ‘আমরা খোঁজ নিয়ে জানতে পারি যে, সবুর মোল্লা ও সায়েম মোল্লা স্থানীয় ভাবে বিএনপি-জামায়াতের রাজনীতির সাথে জোরালোভাবে সম্পৃক্ত। সে আলোকেই নারায়ণগঞ্জের আওয়ামী লীগের ঐতিহ্যবাহী ওসমান পরিবারের সুযোগ্য উত্তরসূরী মানবিক ও সমাজ সেবক ব্যক্তিত্ব অয়ন ওসমানকে জড়িয়ে এই মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এই অভিযোগ করা হয়।

তিনি আরো জানান যে, দলীয় ভাবে আওয়ামী লীগ বা সহযোগী সংগঠনের কোনো পদে না থেকেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তরুণ সমাজসেবক অয়ন ওসমান যা রাজনীতিতে একটি অসামান্য মাইলফলক। সুস্পষ্ট ভাবেই তার সেই কৃতিত্বকে ধূলিসাৎ করার নীল নকশা হিসেবে অয়ন ওসমানের নামে এই মিথ্যা, বানোয়াট ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অভিযোগ দায়ের করা হয়। আমরা ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী এই  অভিযোগের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই’।

  • অয়ন ওসমানের বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ
  • ছাত্রলীগ নেতা হৃদয়ের নিন্দা ও প্রতিবাদ